রানআউট নিয়ে দর্শকের হৈ চৈ

পারশী চৌধুরী, নিউজরুম এডিটর

ছবি দেখতে এসে মনে নানা ভাবনা জাগল। একটি প্যাকেজ নাটক দেখতে হবে এমন ধারণা নিয়েই রাজধানীর বলাকা সিনেমায় রওনা দিয়েছিলাম। আগের অভিজ্ঞতা অনুসারে অবশ্য এ ধারণা অপ্রাসঙ্গিক কিছু নয়। দেখতে যাওয়া রানআউট ছবির নায়ক ও দুই নায়িকা নাটকের মাধ্যমেই পরিচিতি পেয়েছেন। তবে ছবি দেখে এ ধারণা পাল্টে গেলো।

দীর্ঘদিন ধরে শহরে রহস্যময় এক ইশারায় এ ছবির বিলবোর্ড আর পোস্টারে আবেদন ছড়িয়েছেন উদীয়মান এক নারী মডেল। বাংলা ছবিতে হালের আইটেম গানের হাওয়া লেগেছে অবশ্য আরও আগে। আর এবারে বোধ হয় আইটেম গান তার আসনটি পাকাকোক্ত করেই নিল। বিলবোর্ড আর পোস্টারে আবেদন ছড়ানো এ ছবির নাম ‘রানআউট’।

12079437_1690310474537268_8283128504121035753_n

নায়ক সজল আর নায়িকা মৌসুমী নাগ এ ছবিতে চমৎকার অভিনয় করেছেন। বলা যায়, খানিকটা ‘গুলশান অ্যাভিনিউ’ নাটকের মতো চরিত্র পেয়ে মৌসুমীর যেন একটু সুবিধেই হয়েছে। এ ছবিতে তাদের চরিত্রের কেমিস্ট্রি সত্যিই দর্শকরা গ্রহণ করেছেন।

নায়িকার পোশাকেও বেশ উদারতার পরিচয় দিয়েছেন পরিচালক। আর এ ছবির নায়িকাও তা ধারণ করেছেন সাবলীলভাবে। নয়নাভিরাম শুটিং স্পট, দৃশ্যধারণ, এডিটিং, রক ধাঁচের গান—সব মিলেয়ে রানআউটকে একটি ভালো মানের ছবির তকমা দেয়া যায়।

মৌসুমী নাগের অভিনয়ে মনে হয়েছে, ভবিষ্যতে খলনায়িকা চরিত্রেই তিনি ভালো করবেন। রানআউটের মধ্য দিয়ে ঢাকাই ছবিতে নতুন কিছু দেখানোর প্রত্যাশা পূরণে সফল হয়েছেন পরিচালক তন্ময় তানসেন।

বেশ কজন তরুণ দর্শকও এমনটিই জানালেন। একমাত্র কমেন্ট এ তারা বললেন, রানআউট ‘বেশ ভালো।’

তবে শেষ দৃশ্যে কিশোর’র মৃত্যু অনেক দর্শকের মন ভেঙ্গে দিয়েছে। অনেক দর্শকের চোখের পানি তারই প্রমাণ।

ছবির গানগুলোও দারুণ। যদি কারও জানা না থাকে যে, পরিচালক তন্ময় নব্বইয়ের দশকের জনপ্রিয় ব্যান্ড ভাইকিংসের ভোকাল-তাদের জন্য এটি একটি চমকই বটে!

বাংলাদেশ সময়: ২১৩০ ঘণ্টা, ২৩ অক্টোবর,২০১৫

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password