জেএমবিকে নিষিদ্ধ করল ভারত সরকার

বাংলাদেশি জঙ্গি সংগঠন জামাত-উল-মুজাহিদিন বাংলাদেশ বা জেএমবি-কে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে ভারত সরকার। শুক্রবার এক নির্দেশিকায় এ কথা জানানো হয়েছে।
নির্দেশিকা অনুসারে বেআইনি কার্যকলাপরোধী আইন ১৯৬৭ অনুসারে হিংসা ও নাশকতা ছাড়ানোর জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে জেএমবিকে। নির্দেশিকায় ২০১৪ সালের খাগড়াগড় বিস্ফোরণ ও ২০১৮ সালে বুদ্ধগয়া বিস্ফোরণে জেএমবি সম্পৃক্ত বলে স্পষ্ট প্রমাণ পাওয়া গেছে- এমনটাই জানানো হয়েছে। ফলে জামাত-উল-মুজাহিদিন বাংলাদেশ ও তার শাখা সংগঠন জামাত-উল-মুজাহিদিন হিন্দুস্তানকে নিষিদ্ধ করা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে ওই নির্দেশিকায়।
১৯৯৮ সালে বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলে ‘জাগ্রত মুসলিম জনতা বাংলাদেশ বা জেএমজেবি’র জন্ম হয়। ২০০১ সালের আগে এ সংগঠন সম্পর্কে নিরাপত্তা বাহিনী ও সাধারণ মানুষের তেমন কোনও ধারণা ছিল না। ২০০৪ সালের দিকে সংগঠনটির নাম বদলে হয় জামায়াতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ বা জেএমবি। ২০০৫ সালে সারা বাংলাদেশে একযোগে বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে প্রথম সবার নজর কাড়ে জেএমবি। পরে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানে কোণঠাসা হয়ে জঙ্গি সংগঠনটি।
এরই ধারাবাহিকতায় গত প্রায় এক দশক ধরে পশ্চিমবঙ্গে ডালপালা মেলেছে জেএমবি। খাগড়াগড় বিস্ফোরণের পর রাজ্যের একাধিক জেলায় সংগঠনটির প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সন্ধান পাওয়া যায়। কলকাতাসহ পুরো দেশ থেকে গ্রেপ্তার করা হয় সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত একাধিক জঙ্গিকে। এবার আনুষ্ঠানিকভাবে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে সংগঠনটিকে। এর মাধ্যমে তাদের ওপর রাশ আরও শক্ত করলো ভারত সরকার।

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password