শ্রীলঙ্কার ভিসা বন্ধের সিদ্ধান্ত বদল বাংলাদেশের জন্য

শ্রীলঙ্কার ভিসা বন্ধের সিদ্ধান্ত বদল হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের জন্য। বাংলাদেশিদের জন্য ‘অন অ্যারাইভাল ভিসা’ বন্ধ করার সিদ্ধান্তটি বদলে ফেলার জন্য প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেয়া হয়েছে জানালেন শ্রীলঙ্কার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হর্ষ ডি সিলভা ।

বিবিসির সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে ড. হর্ষ ডি সিলভা বলেছেন, বাংলাদেশিদের অন অ্যারাইভাল ভিসা না দেয়ার কোনো সিদ্ধান্ত তার সরকার নেয়নি। ইমিগ্রেশন দপ্তরের প্রধান নিজের সিদ্ধান্তে এরকম একটি পদক্ষেপ নিলেও এখন তারা সেটি বাতিলের জন্য ব্যবস্থা নিচ্ছেন। বাংলাদেশিদের ‘অন অ্যারাইভাল’ অর্থাৎ বিমানবন্দরে নামার পর ভিসা দেয়ার ব্যবস্থা বাতিল করায় শ্রীলঙ্কার সঙ্গে বাংলাদেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে কিছুটা টানাপড়েন দেখা দেয়। বাংলাদেশও পাল্টা শ্রীলঙ্কার নাগরিকদের ‘অন অ্যারাইভাল’ ভিসা দেয়া বন্ধ করে দেয়।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের কিছু জানানো হয়নি। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ এশিয়া বিভাগের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বিষয়টি জানার পর রোববার ঢাকায় শ্রীলঙ্কার হাইকমিশনার ইয়াসোজা গুনাসাকেরাকে তলব করা হয়েছিল। কিন্তু এ বিষয়ে নিজের দেশের সিদ্ধান্ত বা অবস্থানের ব্যাপারে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে কোনো ব্যাখ্যা দিতে পারেননি হাইকমিশনার।

বিবিসির সিনহালা সার্ভিসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে শ্রীলঙ্কার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হর্ষ ডি সিলভা বলেন, ‘এই সিদ্ধান্তটি নিয়েছিলেন শ্রীলঙ্কার ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের প্রধান। তার এ সিদ্ধান্তে আমরা অসন্তুষ্ট। আমরা ইতিমধ্যে তার সঙ্গে কথা বলেছি এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলাপ করে এটির সুরাহা করতে বলেছি। তিনি এতে রাজি হয়েছেন। আমি আশা করছি বিষয়টির একটা সুরাহা ইতিমধ্যে করা হয়েছে।’

শ্রীলঙ্কার পদক্ষেপের পাল্টা বাংলাদেশও যে শ্রীলঙ্কার নাগরিকদের অন অ্যারাইভাল ভিসা দেয়া বন্ধ করেছে, সে প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ, বাংলাদেশও একই পদক্ষেপ নিয়েছে। কিন্তু একটা দেশের একজন ব্যক্তি যখন ভুল করেন, তার মানে এই নয় যে সে দেশের সব মানুষ একই রকম। বাংলাদেশের সঙ্গে আমাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে। কাজেই আমি ইমিগ্রেশন দপ্তরকে বলবো, তারা যেন এরকম কাণ্ড আর না করেন। এটা ছিল এক ভুল। আমরা কূটনৈতিকভাবে বিষয়টির সুরাহার করছি।’

এর আগে শ্রীলঙ্কার সিলোন ডেইলি নিউজে প্রকাশিত এক রিপোর্টে দেশটির ইমিগ্রেশন দপ্তরের ভিসা ও সীমান্ত ব্যবস্থাপনা দপ্তরের কন্ট্রোলার এমবি উইরাসেকারাকে উদ্ধৃত করে বলা হয়, নিরাপত্তার কারণে বাংলাদেশি নাগরিকদের ‘অন অ্যারাইভাল’ ভিসা দেয়া বন্ধ রাখা হয়েছে।

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password