চুয়াডাঙ্গায় মেয়ে জামাইকে পিটিয়ে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক :

জোর করে শ্বশুরবাড়ি থেকে স্ত্রী-সন্তানকে আনতে গিয়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের পিটুনিতে মারা গেছেন চুয়াডাঙ্গা শহরের ফার্মপাড়ার অটোরিকসাচালক টুটুল আহমেদ টোটন (২৮)।

শনিবার রাত ১২টায় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। রাত ৯টার দিকে মূমুর্ষ অবস্থায় টুটুলকে ভর্তি করা হয় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলাম জানান, শহরের ফার্মপাড়ার মৃত আব্দুল খালেকের ছেলে টুটুল আহমেদ টোটনের সঙ্গে তিন বছর আগে একই এলাকার ভ্যানচালক নুরু আলীর মেয়ে নাজমা খাতুনের বিয়ে হয়। তাদের তিন বছর বয়সী একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। কয়েকমাস আগে নাজমা দাম্পত্য কলহের কারণে স্বামীর বাড়ি ছেড়ে পিতার বাড়িতে গিয়ে ওঠেন। যৌতুক দাবির মামলাও করেন স্বামীর বিরুদ্ধে।

বেশ কিছুদিন ধরে স্বামী টুটুল আহমেদ টোটন স্ত্রীকে নিজের বাড়ি ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছিলেন। শনিবার রাত ৯টার দিকে টুটুল জোর করে তার স্ত্রীকে আনার জন্য শ্বাশুরবাড়িতে যান। সেখানে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজন পিটিয়ে গুরুতর জখম করে টুটুলকে।

এলাকার লোকজন রাতেই তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। রাত ১২টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান টুটুল। ওসি আরো জানান, টুটলের লাশ চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে রাখা হয়েছে। ময়না তদন্তের পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১২৩০ ঘণ্টা, ২০ ডিসেম্বর, ২০১৫

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password