অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ নীলফামারী সারের দোকান

অর্থ ও বানিজ্য ডেস্ক :

নীলফামারী জেলার পাইকারী ও খুচরা সার ব্যবসায়ীরা অনির্দিষ্টকালের জন্য তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখেছেন। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ রাসায়নিক সার সরকারীভাবে প্লাষ্টিকের বস্তায় সরবরাহ করা হলেও প্লাষ্টিক বস্তা ব্যবহারের অভিযোগে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে জড়িমানা আদায় করা হচ্ছে। সরকারের এ সিদ্ধান্ত বাতিল না হওয়া পর্যন্ত তারা সার কেনা বেচা বন্ধ রাখবেন।

আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে জেলা শহর সহ ৬ উপজেলার বিসিআই ও বিএডিসির অনুমোদিত ডিলার ও খুচরা সার ব্যবসায়ীরা তাদের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখেছে। ফলে রবি মৌসুমের বিভিন্ন ফসল উৎপাদনে কৃষকরা প্রয়োজনী সার ক্রয় করতে এসে ফিরে যেতে বাধ্য হচ্ছে।

বিএফএ নীলফামারী জেলা সভাপতি আব্দুল ওয়াহেদ সরকার বলেন, কেন্দ্রের নির্দেশে আজ থেকে গোটা জেলায় অনির্দিষ্ট কালের জন্য সকল সারের দোকান বন্ধ রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, রাসায়নিক সার সরকারীভাবে প্লাষ্টিকের বস্তায় সরবরাহ দেওয়া হচ্ছে।

আমরা কোনো উৎপাদন বা বস্তাজাত করছি না। অথচ সরকারীভাবে ওই প্লাষ্টিক বস্তার কারণে ব্যবসায়ীদের জরিমানা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, দেশের ব্রাম্মণবাড়িয়া, নেত্রকোনা, সিরাজগঞ্জসহ বিভিন্ন স্থানে প্লাষ্টিক বস্তায় সার বিক্রির অভিযোগে জড়িমানা আদায় করা হয়েছে।

যমুনা সার কারখানা থেকে সার নেয়ার পথে জড়িমানা আদায় করা হয়েছে, এ কারণে গত দুইদিন ধরে যমুনা সারকারখানা থেকে সার উত্তোলন করছেনা সার ডিলাররা। এর সমাধান না হওয়া পর্যন্ত জেলায় সকল রাসায়নিক সার দোকান বন্ধ থাকবে বলে জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩০ ঘণ্টা, ০১ ডিসেম্বর, ২০১৫

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password