মেয়ের নাম আইসিস জুজু রেখে পস্তাচ্ছে পরিবার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

ইজিপ্টের দেবীর নামে শখ করে মেয়ের নাম রেখেছিল অস্ট্রেলিয়ান এক পরিবার৷ কিন্তু সে নাম যে এমন বিভীষিকায় পরিণত হবে চিন্তাও করেনি সে পরিবার। আর তাই এখন পদে পদে পস্তানোই দস্তুর হয়ে উঠেছে ওই পরিবারের৷ অস্ট্রেলিয়ান পরিবারটি মেয়ের নাম রেখেছিল আইসিস৷

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার এক বেসরকারি খাদ্য প্রস্তুতকারক সংস্থা একটি ক্যাম্পেন চালু করেছিল৷ সেখানে প্রত্যেকটি জারে ‘পারসোনালাইজড গিফট’ হিসেবে পছন্দের কারও নাম লিখে দেওয়া হবে, এমন কথাই জানানো হয়েছিল৷ সেইমতো মেয়ের নামে একটি জার চেয়েছিল ওই পরিবার৷ কিন্তু ‘আইসিস’ শব্দ দেখেই চোখ কপালে ওঠে কোম্পানির৷ পত্রপাঠ সেই নাম ফেরত পাঠায় সংস্থাটি৷ মেয়ের নামের এমন পরিণতি দেখে স্পষ্টতই হতাশ ওই পরিবার৷

অভিযোগ করে মেয়ের মা জানান, সংস্থাটি তাঁর মেয়ের নামের ভুল ব্যাখ্যা করছে৷ পালটা জবাব দিয়ে ওই সংস্থার বক্তব্য, প্রত্যেক ক্যাম্পেনেরই নিজস্ব শর্তাবলী থাকে৷ বোতলের গায়ে নাম খোদাই করার এই ক্যাম্পেনের শর্ত অনুযায়ী এ রকম কোনও নাম দেওয়া সম্ভব হয়নি বলেই তাদের মত৷ বর্তমানে পরিবারটিকে থাকতে হচ্ছে গোয়েন্দা নজরদারিতে।

জঙ্গি সংগঠনের উত্থানের অনেক আগেই মেয়ের এই নাম রেখেছিল ওই পরিবার৷ আইসিস এক প্রাচীন মিশরীয় দেবীর নাম৷ ভূমির দেবতা গেব ও আকাশের দেবী নুটের কন্যা এই আইসিস৷ তিনি বিবাহ করেছিলেন ভাই ওসিরিসকে৷ সময়ের ধাত্রী হিসেবে গণ্য করা হত এই দেবীকে৷

পুনরুজ্জীবনের দেবী হিসেবেও তাঁকে মান্যতা দেওয়া হত৷ কেননা ওসিরিসের হত্যার পর তিনিই তাঁকে পুনরায় বাঁচিয়ে তোলেন৷ এই দেবীর নামেই নিজেদের মেয়ের নাম রেখেছিল ওই পরিবার৷ কিন্তু সেই নাম যে এমন দুঃস্বপ্নে পরিণত হবে কে জানত!

বাংলাদেশ সময়: ১২৪৬ ঘণ্টা, ০১ ডিসেম্বর , ২০১৫

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password