শিশুক অপহরণ করে অপহরনকারীর আত্মহত্যা !

নিজস্ব প্রতিবেদক :

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থেকে অপহরণের ৩৬ ঘন্টা পর শুক্রবার সন্ধ্যায় অপহৃত শিশু জিসানকে মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরের বাগরা গ্রাম থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় অপহরণকারী রাসেলকে স্থানীয়রা পুলিশের দেওয়ার জন্য একটি ঘরে আটকে রাখে। আপহরণকারী রাসেল রাতে ওই ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সোনারগাঁ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নূর হোসেন বলেন, নিহত রাসেলের লাশ উদ্ধার করে দোহার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। ময়না তদন্তের জন্য শনিবার মুন্সিগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে। নূ

র হোসেন জানান, উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের প্রতাপনগর গ্রামের হাজী সালাউদ্দিনের ভাড়াটিয়া ও জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ থানার পশ্চিম কাজলাপাড়া গ্রামের মো. মুল্লুক মিয়ার শিশুপুত্র জিসানকে(৩) বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টার দিকে রাসেল জোরপূর্বক বাড়ির সামনে খেলা করার সময় অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে তাকে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে জিসানের চাচা সাদ্দামের মোবাইল ফোনে জিসানের মুক্তিপণ হিসেবে ৫ লাখ টাকা দাবি করে অপহরণকারী রাসেল। টাকা পাঠানোর জন্য একটি বিকাশ নাম্বার দেয় সে।

এ ঘটনায় জিসানের বাবা মুল্লুক মিয়া বাদী হয়ে রাসেলকে আসামি করে বৃহস্পতিবার বিকেলে সোনারগাঁ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনার পর রাসেল শিশু জিসানকে মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর থানার বাগরা গ্রামে তার আত্মীয়ের বাড়িতে নিয়ে যায়।

পরে অপহরণকারী রাসেলের আত্মীয় বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য ফজলুল হক ওরফে ফজলকে জানালে তিনিসহ স্থানীয়রা অপহরণকারী রাসেলকে আটক করে পুলিশে দেওয়ার জন্য বাগরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের বাড়ির একটি ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখে।

শুক্রবার রাতে ওই ঘরে ধরনার সাথে গলায় রশি পেচিয়ে আত্মহত্যা করে রাসেল। অপহরণকারী আত্মহত্যার ঘটনায় শ্রীনগর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১০১০ ঘণ্টা, ২৮ নভেম্বর,২০১৫

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password