‘বদলি হয়ে’ ঈশ্বরদী ছাড়লেন লুক সরকার

নিউজ ডেস্ক:

পাবনায় সন্ত্রাসী হামলার শিকার হওয়া যাজক লুক সরকার তাঁর কর্মস্থল ঈশ্বরদীর গোকুলনগর এলাকার ব্যাপ্টিস্ট মিশনের ‘ফেইথ বাইবেল চার্চ’ থেকে ‘বদলি হয়ে’ অন্যত্র চলে গেছেন। গত মঙ্গলবার তিনি তাঁর ভাড়া করা বাসা ছেড়ে ঈশ্বরদী থেকে চলে যান।

পুলিশ, ফেইথ বাইবেল চার্চ ও লুক সরকার যে বাড়িতে ভাড়া থাকতেন, সেই বাড়ির মালিক লুক সরকারের ঈশ্বরদী থেকে অন্যত্র চলে যাওয়ার কথা নিশ্চিত করেছেন। তবে তিনি কোথায় গেছেন সে বিষয়ে কেউ নিশ্চিত করে কিছু বলেননি।

গত ৫ অক্টোবর তিন যুবক ঈশ্বরদীর পৌর এলাকার স্কুলপাড়ায় লুক সরকারের ভাড়া বাসায় তাঁকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালান। ওই দিনই তিনি বাদী হয়ে মামলা করেন। পরদিন ৬ অক্টোবর শিবিরের এক কর্মী, ১২ অক্টোবর জেএমবির পাঁচ সদস্য ও ২৮ অক্টোবর জেএমবির পাবনা জেলা কমান্ডার রাকিবুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এঁদের মধ্যে একজন দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন।

ঈশ্বরদীর লুক সরকারের ভাড়া করা বাড়ির মালিক মনিরুল ইসলাম মল্লিক জানান, লুক সরকারের ওপর হামলার কয়েক দিন পর তাঁদের ধর্মীয় সংস্থার পক্ষ থেকে তাঁকে বদলি করা হয়। কিন্তু তখন তিনি যাননি। লুক সরকার এ বিষয়ে তাঁকে অবগত করেছিলেন এবং বিষয়টি সবাইকে জানাতে চাননি। এরপর তিনি গত মঙ্গলবার সকালে বাসা ছেড়ে দিয়ে ঈশ্বরদী থেকে তাঁর বদলির কর্মস্থলে চলে গেছেন। মনিরুল বলেন, লুক সরকার কোথায় বদলি হয়েছেন সে বিষয়ে তিনি তাঁকে কিছু জানাননি।

ঈশ্বরদীর গোকুলনগর ফেইথ বাইবেল চার্চের পালক বিধান রায়  জানান, লুক সরকারকে চার্চের পক্ষ থেকে বদলি করা হয়। এরপর তিনি ঈশ্বরদী থেকে তাঁর নতুন কর্মস্থলে চলে গেছেন।

লুক সরকারের ছেলে ফ্রান্সিস মিঠুন সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে মুঠোফোনে তিনি বলেন, তাঁর বাবা ‘অবকাশ যাপনের জন্য’ কিছুদিন অন্যত্র থাকছেন। এখন তাঁকে ঈশ্বরদীতে পাওয়া যাবে না। তিনি একেবারেই ঈশ্বরদী ছেড়ে যাননি। তবে কোথায় গেছেন-এ বিষয়ে জানাতে মিঠুন সরকার অপারগতা প্রকাশ করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিমান কুমার দাশ বলেন, ‘লুক সরকারের চাকরি থেকে বদলি হয়ে যাওয়ার খবরটি আমরা কিছুদিন আগে শুনেছিলাম। তবে বাসা ছেড়ে যাওয়ার বিষয়টি জেনেছি পরে। মামলার ব্যাপারে তাঁর সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হচ্ছে নিয়মিত।’

গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিচ্ছেন রাকিবুল: এদিকে লুক সরকার হত্যাচেষ্টার মূল আসামি রাকিবুল ইসলামের রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রয়েছে। পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও রাকিবুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন। জিজ্ঞাসাবাদে রাকিবুল গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিচ্ছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঈশ্বরদী থানার ওসি বিমান কুমার দাশ বলেন, আগামী সোমবার বিকেলে রাকিবুলের রিমান্ড শেষ হবে। রিমান্ডে তিনি কী তথ্য দিয়েছেন, তা পরে জানানো হবে। তদন্তের স্বার্থে আপাতত কিছু বলা যাবে না।

বাংলাদেশ সময়: ১০১৪ ঘণ্টা, ০১ নভেম্বর,২০১৫

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password