আমাকে বলির পাঁঠা বানানোর পাঁয়তারা চলছে

নিজস্ব প্রতিবেদক :

বিদেশী নাগরিক হত্যার ঘটনায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ এনেছেন তা প্রত্যাখ্যান করেছেন বিএনপি নেতা ও সাবেক কমিশনার কাইয়ুম।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কথিত ইতালির নাগরিক খুনের ‘নির্দেশদাতা’ বিএনপি নেতা এম এ কাইয়ুম বলেছেন, আমাকে বলির পাঁঠা বানানো হচ্ছে। সরকার আমাকে ও বিএনপিকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়াতে চাইছে।

অজ্ঞাত স্থান থেকে ফোনে বিবিসি বাংলাকে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, “এ ঘটনার আমি কিছুই জানি না। রাজনৈতিকভাবে আমাকে বলির পাঁঠা বানানোর পাঁয়তারা চলছে।”

কাইয়ুম বলেন, “তারা বড় ভাইয়ের কথা বলছে এবং বলছে তদন্ত চলছে। আর এর মধ্যেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলে দিলেন আমার নাম। আমার সন্দেহ যাদের ধরা হয়েছে তাদের দিয়ে আমার নাম বলানো হবে।”

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “যেহেতু আমি গুলশান এলাকার রাজনীতির সাথে জড়িত, তাই হয়তো এটা বিশ্বাসযোগ্য করাতে আমাকে জড়ানো হয়েছে। কিন্তু আমি তো দেশের বাইরে অসুস্থ।”

কাইয়ুম বলেন, “আমার ছোট ভাইকে গত ১৯ তারিখে নিয়ে গেছে। এলাকার আরও কয়েকজনকে নিয়ে গেছে। বিভিন্নভাবে শুনছিলাম যে আমাকে জড়াবে।”

খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের নির্দেশে তিনি ওই ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে আওয়ামী লীগের নেতারা যে অভিযোগ করছেন তাও প্রত্যাখ্যান করেছেন আব্দুল কাইয়ুম।

লন্ডনে গিয়েছেন কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন যে, তিনি সেখানে যাননি।

দেশে ফিরে বিদেশি নাগরিক হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠার বিষয়টি আইনগতভাবে মোকাবেলা করবেন কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আইনগত মোকাবেলার তো বিকল্প নেই। কিন্তু সবই তো নীলনকশা। আমার জীবনের কতটুকু নিরাপত্তা আছে বুঝতে পারছিনা। কেন-ই বা আমাকে জড়ালো তাও বুঝতে পারছি না।”

অথচ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মঙ্গলবার রাতে কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, “গুলশানে ইতালির নাগরিক তাবেলা সিজার খুনের ‘নির্দেশদাতা’ ঢাকার সাবেক কমিশনার এম এ কাইয়ুম।”

প্রসঙ্গত, এম এ কাইয়ুমের ভাই এম এ মতিনকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা গত ২০ অক্টোবর আটক করে নিয়ে যায় বলে তার পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করেছেন। যদিও পুলিশ এখন পর্যন্ত তা স্বীকার করেনি।

বাংলাদশে সময়: ১০৪২ ঘণ্টা, ২৯ অক্টোবর ২০১৫

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password