১৬ ডিসেম্বর থেকে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট কার্যক্রম শুরু

প্রযুক্তি ডেস্ক :

বহুল কাঙ্ক্ষিত বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হচ্ছে আগামী ১৬ ডিসেম্বর থেকে।

ইতিমধ্যে ফ্রান্সের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান থ্যালাস অ্যালেনিয়া স্পেস বাংলাদেশের সঙ্গে যৌথভাবে এই স্যাটেলাইট তৈরি ও তাদের কার্যাদেশ দেওয়ার প্রস্তাব অনুমোদন করেছে সরকার।

প্রতিষ্ঠানটি ২০১৭ সালের ১৬ ডিসেম্বরের মধ্যে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ ও বাণিজ্যিক কার্যক্রমের সার্বিক ব্যাবস্থাপনা করবে। আগামী ৩০ অক্টোবরের মধ্যেই থ্যালাসকে এর কার্যাদেশ দেয়া হচ্ছে।

আর্থিক দরে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকলেও এ কোম্পানিকে কাজ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিটিআরসি। থ্যালাস স্পেস সব মিলে ২৪ কোটি ৮০ লাখ ডলার প্রস্তাব করে। প্রথম স্থানে থাকা এমডেএ প্রস্তাব করেছে ২২ কোটি ২০ লাখ ডলার।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের জন্য আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বান করা হলে চীনের গ্রেটওয়াল ইন্ডাস্ট্রি করপোরেশন, ফ্রান্সের থালেস অ্যালেনিয়া স্পেস, যুক্তরাষ্ট্রের অরবিটাল এটিকে এবং কানাডার এমডিএ কোম্পানি এতে অংশ নেয়। দরপত্রগুলো কারিগরি মূল্যায়নের পর তা ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে পাঠানো হয়।

ওই কমিটি ফ্রান্সের থালেস অ্যালেনিয়া স্পেস কম্পানিকে কার্যাদেশ দেওয়ার প্রস্তাব অনুমোদন করেছে। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, রকেটের মাধ্যমে স্যাটেলাইট পাঠানো হয় মহাকাশে। অনেক সময় রকেট উৎক্ষেপণের আগে-পরে কিংবা অন্য যেকোনো কারণে বিগড়ে যেতে পারে। বিষয়টি মাথায় রেখে কোনো ঝুঁকি নিতে চায় না বাংলাদেশ।

এ জন্য বিকল্প আরেকটি রকেট মজুদ রাখার পরিকল্পনা করা হয়েছে। একটি ব্যর্থ হলে আরেকটি দিয়ে উৎক্ষেপণ করা হবে। এ জন্য ওই প্রকল্পে ব্যয় কিছুটা বাড়ছে।

এর পরও এটি করা হচ্ছে, কারণ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট থেকে বাংলাদেশসহ আশপাশের বেশ কয়েকটি দেশ টেলিযোগাযোগ ও সম্প্রচার সেবা পাবে। এতে দেশের অর্থনীতিতে বড় ধরনের ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। স্থানীয় ও বিদেশি বিনিয়োগ বাড়বে। মহাকাশের বিভিন্ন রেখায় স্থাপন করা ৫৩টি দেশের এক হাজারের বেশি স্যাটেলাইট যোগাযোগ ও সম্প্রচার এবং গোয়েন্দাগিরির কাজ করে যাচ্ছে। যার অর্ধেকই যুক্তরাষ্ট্রের।

বাংলাদেশ হবে ৫৪তম দেশ, যাদের নিজস্ব স্যাটেলাইট হতে যাচ্ছে। নিজেদের স্যাটেলাইট না থাকায় বাংলাদেশের ওপর বিদেশি পাঁচটি স্যাটেলাইট ঘুরে বেড়াচ্ছে। বিশ্বের ১০টি দেশের স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের সক্ষমতা আছে। বিটিআরসি বলছে, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের জন্য অরবিটাল স্লট (১১৯.১ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ) লিজ নিতে চুক্তি করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

ইন্টারস্পুটনিক ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন অব স্পেস কমিউনিকেশনের সঙ্গে দুই কোটি ৮০ লাখ ডলারে এই চুক্তি হয়েছে। স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণ করতে খরচ হবে দুই হাজার ৯৬৭ কোটি টাকা। এর মধ্যে বাংলাদেশ সরকার দেবে এক হাজার ৩১৫ কোটি টাকা। বাকি এক হাজার ৬৫২ কোটি টাকা দেবে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।

এই স্যাটেলাইটের ৪০টি ট্রান্সপন্ডার ক্যাপাসিটি থাকবে। এর মধ্যে ২০টি ট্রান্সপন্ডার বাংলাদেশ নিজের ব্যবহারের জন্য রেখে দেবে। বাকি ২০টি বিক্রি করা হবে।

বাংলাদশে সময় : ১৭৫২ ঘণ্টা, ২৩ অক্টােবর,২০১৫

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password