বাংলাদেশের ১৫ লাখ কর্মী নেবে মালয়েশিয়া

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

খুব শীঘ্রই বাংলাদেশ থেকে ১৫ লাখের মতো লোক নেয়া হবে মালেশিয়াতে। এমনটাই জানিয়েছেন সে দেশের একটি মালয় অনলাইন।

মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাতুক সেরি আহমাদ জাহিদ হামিদি গত মঙ্গলবার দেশটির পার্লামেন্টে বলেছেন, বাংলাদেশ থেকে ১৫ লাখ কর্মী নেওয়া হবে।

এ ক্ষেত্রে অনলাইন-সংক্রান্ত কার্যাদি পরিচালনায় সাইনারফ্লাক্স নামের একটি প্রতিষ্ঠানকে নির্বাচিত করা হয়েছে।

অবশ্য দুদেশের মধ্যে এ নিয়ে চূড়ান্ত আলোচনা হয়নি বলেও জানান তিনি। মালয় মেইল অনলাইনের খবরে একথা জানানো হয়।

বার্তা সংস্থাটি জানায়, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আহমাদ জাহিদ বলেছেন, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও অভিবাসন কর্মকর্তারা দক্ষিণ এশিয়ার দেশটি থেকে কর্মী আমদানি-সংক্রান্ত অনলাইন কার্যক্রম পরিচালনায় আগ্রহী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের আবেদনপত্র মূল্যায়নের পর সাইনারফ্লাক্সকে বাছাই করেছে।

তিনি অবশ্য এ-ও বলেন যে, এ বিষয়ে বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়ার মধ্যে চূড়ান্ত বিহিত হয়নি। একটি চূড়ান্ত চুক্তি করতে কাজ করছে দুদেশ।

আহমাদ জাহিদ বলেন, অনলাইন কার্যক্রম পরিচালনায় সাইনারফ্লাক্সকে নির্বাচিত করা হয়েছে এই কারণে যে, কর্মী হস্তান্তরে তাদের প্রস্তাবিত মডেলটি সবচেয়ে টেকসই এবং এটি পুত্রজায়াকে (মালয়েশিয়া প্রশাসনের কেন্দ্রবিন্দু) ‘অধিকতর নিয়মানুগ, কার্যকর ও নিয়ন্ত্রিত কার্যপ্রণালী’ প্রদান করবে।

তিনি আরও বলেন, এখন দুদেশের সরকার এই প্রক্রিয়া ও বাস্তবায়ন পদ্ধতি হালনাগাদের কাজ করছে। মন্ত্রণালয়ও সাইনারফ্লাক্সের প্রস্তাবিত প্রযুক্তিগত দিকগুলো খতিয়ে দেখছে।

মালয় মেইলের খবরে আরও বলা হয়, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আহমাদ জাহিদ তার ভাই ব্যবসায়ী দাতুক আব্দুল হাকিমকে এই কাজের মাধ্যমে পুরস্কৃত করেছেন এবং তার আদেশেই আব্দুল হাকিমকে এই কাজ দেওয়া হয়েছে বলে ইতিপূর্বে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

এর জেরে এ প্রকল্প নিয়ে বিতর্কের ঝড় ওঠে। অবশ্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে সে সময় জানিয়েছিল, বিষয়টি এখনো আলোচনাধীন। গত আগস্টে মালয়েশিয়ার দ্য স্টার পত্রিকায় প্রকাশিত এক বিবৃতিতে মন্ত্রণালয় স্বীকার করে যে, রিয়েল টাইম নেটওয়ার্কিং এসডিএন বিএইচডি নামের একটি প্রতিষ্ঠান যে কার্যপত্র জমা দিয়েছিল, সেই পত্রে একটি ‘নোট‘ ছিল।

প্রতিষ্ঠানটির এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ভাই আবদুল হাকিম। মন্ত্রণালয় তখন ওই নোটের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানায়নি। তবে নোটটি চুক্তিকে সমর্থন করে বা চুক্তি পাইয়ে দেওয়ার নির্দেশনাসূচক নয় বলে জোর দাবি করা হয় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে।

বাংলাদশে সময়: ১৪৪২ ঘণ্টা, ২২ অক্টােবর,২০১৫

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password