ফাঁদে ফেলে মেরে ফেলা হলো দুই হাতি !

নিউজ ডেস্ক :

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় গ্রামবাসীর পেতে রাখা বৈদ্যুতিক ফাঁদে আটকা পড়ে দুটি বুনো হাতি মারা পড়েছে। ডাংধরা ইউনিয়নের মাখনেরচর গতকাল শনিবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে।

ডাংধরা ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, গত এক সপ্তাহ ধরে বাঘারচর সীমান্ত দিয়ে একটি বুনো হাতির পাল খাবারের সন্ধানে ওই ইউনিয়নের মাখনেরচর, বাঘারচর ও পাথরেরচর গ্রামের লোকালয়ে প্রবেশ করে। পালটিতে কমপক্ষে ৩০টি বুনো হাতি থাকে।

হাতির পাল ওই তিন গ্রামের রোপা আমন, গম, সরিষার ও আখ খেতসহ বিভিন্ন ফসলের ক্ষতি করছিল। হাতির পালের থেকে ফসল রক্ষা করতে সপ্তাহ খানেক ধরে ওই গ্রামগুলোর মানুষ জেগে থেকে পাহারা দিয়েছে। গ্রামবাসীরা মশাল জ্বালিয়ে, হই হুল্লোড় করে ও ঢাকঢোল পিটিয়ে হাতির পালটিকে তাড়ানোর চেষ্টা করেছিল। কিন্তু তাতেও বুনো হাতির পালটি গ্রাম ছেড়ে যাচ্ছিল না।

এরপর আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে গতকাল রাতে গ্রামবাসীরা জেনারেটরের মাধ্যমে মাখনেরচর গ্রামে একটি বৈদ্যুতিক ফাঁদ পাতে। রাত আটটার সময় মাখনেরচর গ্রামের ওই বৈদ্যুতিক ফাঁদের তারে জড়িয়ে পড়ে দুটি বুনো হাতি মারা পড়ে।

দেওয়ানগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘হাতির মৃত্যুর খবর পেয়ে আমি সেখানে গিয়েছিলাম। বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে হাতি দু’টির মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে হাতি দু’টির ময়নাতদন্ত করা হবে। শনিবার রাতেই মারা পড়া হাতি দুটির সুর, দাঁত ও কান কেটে নেওয়া হয়েছে। তবে, কারা এ কাজ করেছে, সেটি নিশ্চিত হওয়া যায়নি।’

ময়মনসিংহের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা গোবিন্দ রায় বলেন, জেনারেটরের বিদ্যুতের মাধ্যমে ফাঁদ পেতে হাতি দুটিকে মারা হয়েছে। হাতি দু’টির মৃত্যুর পর কে বা কারা দাঁত, সুর ও কান কেটে নিয়ে গেছেন। হাতি দুটির ময়নাতদন্ত শেষে মাখনের চর গ্রামে মাটি দেওয়া হবে। এ ঘটনায় বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আইনে দেওয়ানগঞ্জ থানায় মামলা করা হবে।
বাংলাদেশ সময়: ১৮৪২ ঘন্টা, ১৮ অক্টোবর,২০১৫

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password