`সফল ব্যবসায়ী হতে হলে মনোযোগী, প্রবল ধৈর্য্য ও সৎ হতে হবে’

সফল মুখ বিভাগ : 

আহসান জুবায়ের। একজন সফল তরুণ ব্যবসায়ী। তার প্রতিষ্ঠানের নাম ট্রাস্ট লিংকস লিমিটেড।  তবে ব্যবসার শুরুর দিকটার পথ ছিল না সফলতার। আজকের এই অবস্থানে আসতে বেশ ক্ষাণিকটা পথ পাড়ি দিতে হয়েছে তাকে। তার এই ব্যবসায়িক সফলতার পেছনে সব সময় পাশে ছিল তাঁর বন্ধু খায়রুল বাশার ঢালী। আজ জানবো তরুণ এই ব্যবসায়ীর নানা অজানা কথা।

** আপনার জন্মস্থান কোথায়? বেড়ে উঠেছেন কোথায়?

জুবায়ের : পুরান ঢাকার ওয়ারিতে ১৯৮৪ সালে জন্ম। সেখানেই শৈশব কাটে। বাবা মরহুম কামরুল আহসান ও মা সামসুন নাহার। আমরা দুইভাই । আমি পরিবারের বড় ছেলে । আমার ছোট ভাই আহসান সারোয়ার,উনি একজন চলচ্চিত্র পরিচালক।

**পড়াশুনা কোথায় করেছেন?

জুবায়ের : আমি ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি থেকে বি বি এ এবংনিট (ইন্ডিয়া) থেকে ই-কমার্স শেষ করি।

**ব্যবসা কি আপনার একার ? প্রথম অফিস কোথায় ছিল? ব্যবসার শুরুর দিকটার কথা বলুন ?

জুবায়ের : আমি ও আমার বন্ধু খায়রুল বাশার ঢালী মিলে ব্যবসা শুরু করি। আমরা যখন বি বি এ একসাথে পড়াশুনা করি, তখন থেকেই আমরা খুব ভালবন্ধু। শুধু বন্ধু বললে ভুল হবে-কারণ, আমরা দুজন দুজনকে ভাইয়ের মত দেখি। ঠিক তখন থেকেই আমরা পরামর্শ করে ব্যবসা করার পরিকল্পনা করি।প্রথমে আমরা আমাদের ব্যবসা শুরু করি নিজ বাসায় ছোট একটি রুমে, ২০০৯ সালের শেষের দিকে।

**ব্যবসা বৃদ্ধি করলেন কিভাবে? কি ধরনের কোম্পানী এটি ?

জুবায়ের : ব্যবসা বৃদ্ধির কথা বলতে হলে অবশ্যই আমার একজন শিক্ষকের কথা বলতেই হয়। উনি আমাকে একটি উদাহরন দিয়েছিলেন..যে, ”পিপাসা পেলে সামনে যদি কোন ফাকা গ্লাস থাকে সেদিকে অগ্রসর হবা, তাহলে গ্লাসে অবশ্যই একটু হইলেও পানি পাবা এবং সামান্যতম হইলেও পিপাসা তোমার লাঘব হবে।” সেই অনুপ্রেরনা থেকে আমাদের ব্যবসা শুরু। আল্লাহর অশেষ মেহেরবানিতে আজও ভালভাবে চলছে।মুলত বায়িং হাউজ ও টেক্সটাইল কেমিক্যাল এর ব্যবসা আমাদের।

12086957_10153638923229183_1856853609_n
**বর্তমানে ক্লায়েন্ট কারা? কতজন কর্মচারী রয়েছে?

জুবায়ের : আমাদের লোকাল কিছু ক্লায়েন্ট রয়েছে যেমন-সফট টেক্স সুয়েটার প্রাইভেট লি:, কে এম ফ্যাশন, ক্যামব্রীজ ফ্যাশন প্রভৃতি। আমাদের প্রধান অফিস ও ফ্যাক্টরী মিলে মোট ২৬ জন কর্মচারী রয়েছে।

** ফ্যাক্টরী কোথায় অবস্থিত? এবং কত সালে?

জুবায়ের : ২০১০ সালে বরপা, রুপগঞ্জ, নারায়নগঞ্জে ফ্যাক্টরী স্থাপন করা হয়।
** ব্যবসার উন্নতির জন্য কি কি করা দরকার বলে মনে করেন?

জুবায়ের : আমি আমার ব্যবসার শুরু থেকে যেটাকে বেশি মূল্যায়ন করি তা হলো সততা। ব্যবসায় সফল হতে হলে অবশ্যই কঠিন পরিশ্রমী, সৎ, সদব্যবহার, সহনুভুতিশীল, লক্ষ্য ও অঙ্গিকারবদ্ধ থাকতে হবে।

12071513_10153638923394183_685816670_n

** নতুন কোনো তরুণ এই ব্যবসায় আসতে চাইলে আপনি কি কি পরামর্শ দিবেন?

জুবায়ের : শুধু এই ব্যবসা না যেকোনো ব্যবসাতেই মূলধন লাগে। তবে অল্প মূলধনে প্রথম অবস্থায় ছোটো ভাবে একটা ব্যবসা দাড় করাতে পারে। তরুণ ব্যবসায়ীদের প্রতি আমার এই পরামর্শ যে, প্রথমেই তাকে লক্ষ্য নির্ধারন, ব্যবসায় মনোযোগী, প্রবল ধৈর্য্য ও সৎ হতে হবে। এগুলো ছাড়া কখেনোই ব্যবসায় সফল হওয়া সম্ভব নয়। যদি সে শেয়ারে ব্যবসা করে তাহলে অবশ্যই প্রয়োজন তা হলো একে অপরের প্রতি বিশ্বাস।

** আপনার প্রতিষ্ঠানের বাহিরে ব্লাকশাইন সম্পর্কে কিছু বলেন?

জুবায়ের : ব্লাকশাইন আমার একটি প্রোডাকশন হাউস। এই হাউস থেকে সিনেমা, টেলিফিল্ম, নাটক, মিউজিক ভিডিওইত্যাদি তৈরী করা হয়। বাংলাদেশের প্রথম আমরাই শিশুদের নিয়ে ভৌতিক ধরনের সিনেমা তৈরী করেছি যারনাম ” আমরা করবো জয়”। আগামীতে বানিজ্যিক সিনেমা তৈরীর পরিকল্পনা চলছে।

** আপনি কি ভেবেছিলেন ব্যবসায়ী হবেন? ছোট বেলায় কি স্বপ্ন দেখতেন?

জুবায়ের : হ্যা,আমি ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন দেখতাম যে আমি একজন ব্যবসায়ী হব। সততার সহিত ব্যবসা করে আমি উন্নতি করবো-এটাই ছিল আমার স্বপ্ন। আল্লাহপাকের অশেষ রহমতে আজও আমি সততার সহিত ব্যবসা করে আসছি।

** আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি?

জুবায়ের : ভবিষ্যৎপরিকল্পনা বলতে আমি চাই সততার সাথে ব্যবসা করে অনেক উন্নতি করে এতিমদের জন্য কিছু করতে চাই। আল্লাহপাক যদি আমাকে সেই তৌফিক দান করেন,এই কাজটা আমি আগামীতে করতে চাই।

বাংলাদশে সময়: ১৪৪৮ ঘন্টা, ১৮ অক্টােবর,২০১৫

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password