ভিডিও করতে গিয়ে তিন ইউটিউবারের মৃত্যু

কানাডায় জলপ্রপাত থেকে নিচে পড়ে গিয়ে তিন ইউটিউব তারকার মৃত্যু হয়েছে। গত মঙ্গলবার দেশটির ব্রিটিশ কলাম্বিয়া রাজ্যের শ্যানোন জলপ্রপাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

হাই অন লাইফ মূলত ভ্রমণ চ্যানেল। দুর্গম অঞ্চলে গিয়ে শ্বাসরুদ্ধকর সব অভিযানে অংশ নেন এর সদস্যরা। সেই মুহূর্তগুলোর ভিডিও চিত্র ধারণ করে ইউটিউবে প্রকাশ করেন তাঁরা। ইনস্টাগ্রামে তাঁদের ১০ লাখেরও বেশি অনুসারী এবং ইউটিউবে ৫ লাখের বেশি গ্রাহক আছেন।

হাই অন লাইফের সবচেয়ে পরিচিত মুখ রাইকার গ্যাম্বলসহ বাকি দুজনের মৃত্যুতে চ্যানেলটির অন্য সদস্যরা শোক জানিয়ে একটি ভিডিও প্রকাশ করেন। ভিডিওটিতে নিহত ব্যক্তিদের প্রতি তাঁদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা উল্লেখ করে বলা হয়, এ তিনজনের মতো উদার, প্রাণচঞ্চল ও ভ্রমণপ্রিয় মানুষের দেখা খুব কমই পাওয়া যায়।

রাইকার গ্যাম্বল, আলেক্সি লয়াখ ও মেগান স্ক্র্যাপার নামের প্রয়াত তিন ইউটিউবারই ‘হাই অন লাইফ’ নামের ইউটিউব চ্যানেলের সদস্য। লাশ উদ্ধার ও প্রাথমিক তদন্ত শেষে স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, তাঁরা জলপ্রপাতে সাঁতার কাটার সময় পিছলে ৩০ মিটার নিচের গভীর খাদে পড়ে যান। তবে মেগান সবার আগে নিচে পড়ে গেলে তাঁকে উদ্ধার করতে গিয়ে বাকি দুজনও পড়ে যান।

চ্যানেলটির অনেক ভিডিওতে রাইকার, লয়াখ এবং মেগানকে দুর্দান্ত ও শ্বাসরুদ্ধকর কাজ করতে দেখা গেছে। এমনই আরও অনেক সরু কিংবা প্রবল স্রোতের জলপ্রপাতেও তাঁদের লাফঝাঁপের ভিডিও রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে বেশ কিছু ঝুঁকিপূর্ণ কাজে অংশ নেওয়ার জন্য অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় গত বছর রাইকার ও লয়াখসহ চ্যানেলটির আরও কয়েকজনকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। সঙ্গে সাত দিনের জেলও খাটতে হয়েছিল।

ঝুঁকিপূর্ণ ভিডিও ধারণ করতে গিয়ে ইউটিউবারদের মৃত্যু দিন দিন বাড়ছে। গত বছর ওয়াই ইয়ং ইংগো নামের জনপ্রিয় ইউটিউবার অনেক উঁচু টাওয়ারে ওঠার সময় পড়ে গিয়ে প্রাণ হারান। পেদ্রো রুইজ নামের আরেক ইউটিউবার বন্দুকের গুলি নিয়ে পরীক্ষা করার সময় নিহত হন। এ ছাড়া ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে সেলফি নিতে গিয়েও প্রাণহানির অনেক ঘটনা রয়েছে। তাই নিরাপত্তার দিক থেকে এখন আরও সতর্ক হচ্ছেন ইউটিউবাররা।

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password