বিদায় নিচ্ছে উইন্ডোজ ফোন?

একসময়ের জনপ্রিয় উইন্ডোজ ফোনকে বিদায় বলে দিতে হচ্ছে। মার্কিন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফট আর উইন্ডোজ ফোন তৈরি না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মাইক্রোসফটের অপারেটিং সিস্টেম বিভাগের করপোরেট ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বেলফাইওর সম্প্রতি কয়েকটি টুইট করে উইন্ডোজ ১০ মোবাইল অপারেটিং সিস্টেমের জন্য নতুন ফিচার বা হার্ডওয়্যার তৈরি থেকে সরে আসার ঘোষণা দেন। বিশ্বজুড়ে স্মার্টফোন বাজারে উইন্ডোজ ফোনের দখল মাত্র দশমিক এক শতাংশ।

২০০৭ সালে মার্কিন প্রতিষ্ঠান অ্যাপল যখন প্রথম আইফোন বাজারে ছাড়ে, তখন মাইক্রোসফটের প্রধান নির্বাহী স্টিভ বলমার দম্ভভরে ঘোষণা করেছিলেন, ফোনের বাজারে গুরুত্বপূর্ণ জায়গা দখল করার কোনো সম্ভাবনা আইফোনের নেই। বলমার তখন গুগলের সার্চ ইঞ্জিনের সঙ্গে টক্কর দেওয়ার বিষয়টিতে এতটাই মরিয়া ছিলেন যে, মোবাইল ডিভাইসে অ্যান্ড্রয়েড যে মারাত্মক হুমকি হয়ে উঠছে, তা তিনি ধরতে পারেননি।

যখন আইফোন বাজারে আসে, তখন পর্যন্ত মোবাইল বাজারে লড়াই করার ক্ষমতা ছিল মাইক্রোসফটের। ওই সময় উইন্ডোজ মোবাইলকে স্মার্টফোনের অন্যতম অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে গণ্য করা হতো। তবে ২০১০ সালের আগ পর্যন্ত মাল্টিটাচ মোবাইল ওএস হিসেবে কোনো অপারেটিং সিস্টেম ছাড়েনি মাইক্রোসফট। অর্থাৎ, প্রথম আইফোন বাজারে ছাড়ার তিন বছর ও প্রথম অ্যান্ড্রয়েড ফোন বাজারে আসার দুই বছর পরে মাইক্রোসফট যুদ্ধে নামে।

 

 

২০১৫ সালে উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেমের ঘোষণা দেয় মাইক্রোসফট। ওই সময় প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়, উইন্ডোজ ফোন ৮ এর সাফল্যের ধারাবাহিকতায় নির্দিষ্ট ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস কেবল উইন্ডোজ ১০ মোবাইল ওএসে চলাবে। এটি কন্টিনিয়াম ফিচার ও ডিসপ্লে ডকের মাধ্যমে ফুল ডেস্কটপ পিসিতে রূপান্তর করা যাবে। ব্যবসায়ী গ্রাহকদের জন্য এটি দারুণ ধারণা হিসেবে গণ্য করা হয়। তবে দুটি কারণে কন্টিনিয়াম সফলতা পায়নি। একটি হচ্ছে হাই এন্ড বা দামি উইন্ডোজ ডিভাইসের জন্য অনেকেই আইফোন ও অ্যান্ড্রয়েড ছাড়তে চাননি। আরেকটি হচ্ছে অল-ইন-ওয়ান কম্পিউটিং ডিভাইসের ক্রেতা কম।

তথ্যসূত্র: পিসি ওয়ার্ল্ড, দ্য গার্ডিয়ান

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password