গাড়িতে তুলে চোখ বেঁধে ফেলে ফরহাদ মজহারের

গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে যশোরের অভয়নগরে খুলনা থেকে ঢাকাগামী হানিফ পরিবহনের একটি বাস থেকে ফরহাদ মজহারকে উদ্ধার করা হয়। স্বজনেরা অভিযোগ করেন, গতকাল ভোরে কে বা কারা ফরহাদ মজহারকে রাজধানীর শ্যামলীর হক গার্ডেনের বাসার সামনে থেকে তুলে নিয়ে গেছে।

আদালতে ফরহাদ মজহার বলেন, সরকারকে বিব্রত করতে তাঁকে অপহরণ করা হয়। কোনো কিছু না নিয়ে অপহরণকারীরা তাঁকে ছেড়ে দেয়। যে তিনজন তাঁকে অপহরণ করে, তাদের তিনি চেনেন না। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আদাবর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম বলেন, ফরহাদ মজহার বলেছেন, তিনজন লোক তাঁকে অপহরণ করে। তাদের পরিচয় এখনো জানতে পারেননি। খুঁজে বের করার চেষ্টা চালাচ্ছেন। ঢাকা থেকে অপহরণ করে তাঁকে খুলনায় নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে ঢাকায় আসার জন্য তিনি বাসে ওঠেন।

এরপর ফরহাদ মজহারকে বেলা তিনটায় আদালতে তোলে পুলিশ। রাজধানীর আদাবর থানায় তাঁর স্ত্রী ফরিদা আখতার এ ব্যাপারে অপহরণ মামলা করেন। এর ভিকটিম হিসেবে তাঁর জবানবন্দি রেকর্ড করার আবেদন করে পুলিশ। প্রায় আড়াই ঘণ্টা ধরে তিনি ঢাকার মহানগর হাকিম আহসান হাবীবের কাছে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। পরে ১০ হাজার টাকা মুচলেকায় তাঁকে নিজ জিম্মায় বাড়ি যাওয়ার অনুমতি দেন আদালত। বর্তমানে তিনি বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। মামলার বাদী ফরিদা আখতার আদালতে বলেছিলেন, ‘স্বামীকে ফিরে পেয়েছি। এতেই খুশি।’

কবি, প্রাবন্ধিক ও রাজনৈতিক ভাষ্যকার ফরহাদ মজহার সেদিন সকালে ওষুধ কেনার জন্য বেরিয়ে ছিলেন। বাসা থেকে বের হয়ে তিনি রাস্তায় হাঁটছিলেন, এমন সময় একটি সাদা মাইক্রোবাস তাঁর সামনে এসে দাঁড়ায়। তিনি কিছু বুঝে ওঠার আগেই তিনজন লোক তাঁকে জোর করে মাইক্রোবাসে তুলে চোখ বেঁধে ফেলে। গাড়িটি সোজা খুলনা চলে যায়।

ছবি: সাইফুল ইসলাম (প্রথম আলো)

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password