প্রবাসী আয় কমেছে সাড়ে ১৪ শতাংশ

গত ২০১৬-১৭ অর্থবছরে প্রবাসীরা পাঠিয়েছেন ১ হাজার ২৭৬ কোটি ডলার। প্রবাসীদের হাত ধরে ২০১৫-১৬ অর্থবছরের এসেছিল ১ হাজার ৪৯৩ কোটি ডলার। প্রবাসী শ্রমিক অধ্যুষিত দেশগুলোর অর্থনৈতিক মন্দার পাশাপাশি মোবাইল সেবার মাধ্যমে অবৈধ পথে রেমিট্যান্স বিতরণের কারণেই এ মন্দাবস্থা বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

ঈদকে সামনে রেখে প্রবাসী আয়ে (রেমিট্যান্স) যে ঊর্ধ্বগতি শুরু হয়েছিল, মাস শেষে তা খরায় পরিণত হলো। প্রবাসী আয়ের নিম্নগতি কোনোভাবেই কাটল না। গত শুক্রবার যে অর্থবছর শেষ হলো, তাতে প্রবাসী আয় কমে গেল সাড়ে ১৪ শতাংশ। আয় বাড়াতে নানা উদ্যোগের পরও অর্থবছরের হিসাবে এসে বড় হোঁচট খেল সরকার।

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অর্থ উপদেষ্টা এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, আমাদের প্রবাসী আয় মধ্যপ্রাচ্যনির্ভর। এসব দেশ আবার জ্বালানি ব্যবসা নির্ভর। জ্বালানির দাম কমায় দেশগুলো অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড কমিয়ে আনছে। ফলে অনেক শ্রমিক ছাঁটাই হচ্ছে, নতুন নিয়োগও বন্ধ। এদিকে মালয়েশিয়ায় অনেক শ্রমিক অবৈধভাবে কাজ করছেন, তাঁরা বৈধভাবে আয় পাঠানোর সুযোগ পাচ্ছেন না। এসব কারণে আয় কমে গেছে।

তথ্যমতে, ২০১৫-১৬ অর্থবছরের তুলনায় গত অর্থবছরে প্রবাসী আয় কমেছে ১৪ দশমিক ৪৭ শতাংশ। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে প্রবাসী আয় কমেছিল আড়াই শতাংশ। তবে ২০১৪-১৫ অর্থবছরে প্রবাসী আয় বাড়ে সাড়ে ৭ শতাংশ।

 

 

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password