শাকিবকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর পদত্যাগ দাবি করেছেন চলচ্চিত্র ঐক্যজোটের নেতারা। সেসঙ্গে তারা ঢালিউডের জনপ্রিয় নায়ক শাকিব খানকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছেন। এই জোটের যে দু’জন সেন্সর বোর্ডের সদস্য হিসেবে আছেন তাদেরকেও অব্যাহতি নেয়ার পরামর্শ দেন কেউ কেউ। শুক্রবার সন্ধায় এফডিসিতে অনুষ্ঠিত এক জরুরি বৈঠকে এ বিষয়গুলো উত্থাপন করেন তারা।

ঐক্যজোটের নেতারা শুক্রবার বিকেলে এফডিসিস্থ পরিচালক সমিতির কার্যালয়ে জরুরি বৈঠকে বসেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা ফারুক, আলমগীর, রিয়াজ, মিশা সওদাগর, ডিপজল, জায়েদ খান, অভিনেত্রী রোজিনা, অঞ্জনা, পপি, পরিচালক মুশফিকুর রহমান গুলজার, মোহাম্মদ হোসেন জেমী, বদিউল আলম খোকন, শাহীন সুমন, প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরুসহ আরো অনেকে।

বৈঠকে চলচ্চিত্র ঐক্যজোটের নেতারা সম্মিলিত কণ্ঠে তথ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবিসহ একইসঙ্গে শাকিব খানকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন। সেইসঙ্গে যৌথ প্রযোজনার নামে দেশের প্রচলিত আইন যারা ভেঙেছে তাদের সঙ্গে জড়িত সব শিল্পী, পরিচালক, প্রযোজক ও কলাকুশলীকেও নিষিদ্ধ করা হয়।

নায়ক আলমগীর বলেন, শাকিব খানকে আর ক্ষমা নয়। এর আগে শাকিবের ঝামেলা মিটিয়ে দিয়ে ভুল করেছিলাম। এর জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী। আমাদের ফারুক ভাইকে নিয়ে যে মন্তব্য সে করেছে তা ক্ষমা করা হবে না। তাকে বয়কট নয়, তার শাস্তি চাই। এই অভিনেতা আরো বলেন, দিলীপ কুমার ৪০ বছর সিনেমা করেন না। তাই বলে অমিতাভ কী তাকে খাটো করে কথা বলেন। ফারুক ভাই ২৫ বছর জীবন যৌবন বিলিয়ে দিয়েছেন এই ইন্ডাস্ট্রির জন্য। তার মতো একটা ছবি শাকিব করুক আগে। ওর কীসের অভাব? আল্লাহ শাকিবকে সব দিয়েছেন। টাকা, নাম-যশ। অভিনেতা ফারুক বলেন, আমরা চলচ্চিত্রের ধ্বংস বসে বসে দেখবো না। প্রয়োজনে রাস্তায় না খেয়ে থাকবো বিষয়টিতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপের জন্য।

প্রসঙ্গত, বেশ কয়েকদিন ধরেই ‘বস-টু’ ও ‘নবাব’ ছবি দুটির বিরুদ্ধে যৌথ প্রযোজনার নীতিমালা সঠিকভাবে মানা হয়নি বলে অভিযোগ তুলে আসছিলেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ঐক্যজোটের নেতারা। আর এই ঐক্যজোটে রয়েছে পরিচালক সমিতি, শিল্পী সমিতিসহ চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট ১৮টি সংগঠন।

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password