তেলাপিয়ার চামড়া দিয়ে পোড়া রোগীর চিকিৎসা

তেলাপিয়ার চামড়া দিয়ে পোড়া রোগীর চিকিৎসা সম্ভব বলে এক গবেষনায় আবিস্কার করেছেন ব্রাজিলের গবেষকরা। পুড়ে যাওয়া চামড়া প্রতিস্থাপনের চিকিৎসায় তেলাপিয়া মাছের চামড়া ব্যবহার করছেন ব্রাজিলের গবেষকরা। তারা জানিয়েছেন, এই প্রক্রিয়ায় পুড়ে যাওয়া ব্যক্তিদের চিকিৎসা ও যন্ত্রণার উপশম অনেক কম খরচে করা সম্ভব হবে। এতে কোনো ঔষুধ ছাড়াই রোগী অতি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবে।

পুড়ে যাওয়া চামড়া সেরে ওঠার প্রোটিন কোলাজেন তৈরি করতে চিকিৎসায় হিমায়িত শুকরের চামড়া অথবা মানুষের টিস্যু ব্যবহার করা হয়। তবে ব্রাজিলের সরকারি হাসপাতালগুলোতে হিমায়িত শুকরের চামড়া, মানুষের টিস্যু বা এর কৃত্রিম অন্যান্য বিকল্পগুলো বিরল যা উন্নত দেশগুলোতে অনায়াসে পাওয়া যায়। এগুলোর বদলে গজ, ব্যান্ডেজ ব্যবহার করা হয় যা স্থাপন ও অপসারণ পুড়ে যাওয়া রোগীর জন্য অনেক যন্ত্রণাদায়ক।

ব্রাজিলীয় গবেষকরা বলেছেন, তেলাপিয়া মাছের চামড়ায় যে আর্দ্রতা, কোলাজেন ও রোগ প্রতিরোধী গুণাগুণ রয়েছে তা প্রায় মানুষের চামড়ার তুল্য ও পুড়ে যাওয়া চামড়া সেরে ওঠায় সহায়ক। তেলাপিয়ার চামড়া দিয়ে পুড়ে যাওয়া রোগীকে চিকিৎসা দিলে অনেক আগেই সেরে উঠবে এবং যন্ত্রণাদায়ক চিকিৎসা থেকে মুক্তি দেবে রোগীকে। এখন পর্যন্ত পরীক্ষামূলকভাবে ৫৬ জন থার্ড ডিগ্রি বার্ন রোগীকে এই চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

ব্রাজিলের সিয়ারা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ওদোরিকো দে মোরাইস বলেন, পুড়ে যাওয়ান রোগীর চিকিৎসায় তেলাপিয়ার চামড়া ব্যবহার আগে কখনো হয়নি। মাছের চামড়া ফেলে দেয়া হয়, আমরা এই পণ্যটির একটি সামাজিক উপযোগ নিশ্চিত করতে চাচ্ছি।

এনবিসি নিউজ

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password