আবারো বাড়ছে গ্যাসের দাম

আগামীকাল ১ জুন থেকে দ্বিতীয় ধাপে গ্যাসের দাম বাড়ানোর সরকারি সিদ্ধান্তের ওপর হাইকোর্টের দেওয়া স্থগিতাদেশ স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগের চেম্বার জজ বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল মঙ্গলবার এ আদেশ দেওয়া হয়েছে। ফলে গ্যাসের দ্বিতীয় ধাপে বর্ধিত দাম কার্যকর হতে পারে। ওই আদেশের পর আইনজীবীরা বলছেন, আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে গ্যাসের দাম বাড়াতে আপাতত আইনগত কোনো বাধা থাকল না।

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের পক্ষ থেকে দুই ধাপে গ্যাসের দাম বাড়িয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছিল। ওই বিজ্ঞপ্তিতে আটটি গ্রাহক শ্রেণিতে দুই ধাপে গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়। দুই ধাপে গ্যাসের দাম গড়ে ২২.৭৩ শতাংশ বেড়েছে। প্রথম ধাপে আবাসিক খাতে দুই চুলার জন্য ৮০০ টাকা এবং এক চুলার জন্য ৭৫০ টাকা নির্ধারণ করা হয়, যা ১ মার্চ থেকে কার্যকর হয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে দুই চুলার জন্য ৯৫০ টাকা এবং এক চুলার জন্য ৯০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়, যা ১ জুন থেকে কার্যকর হওয়ার কথা। এক চুলায় ৫০ শতাংশ এবং দুই চুলায় ৪৬.১৫ শতাংশ দাম বাড়ানো হয়েছে। এ ছাড়া প্রথম দফায় গৃহস্থালিতে মিটারভিত্তিক গ্যাসের বিল প্রতি ঘনমিটার সাত টাকা থেকে বাড়িয়ে ৯ টাকা ১০ পয়সা করা হয়। দ্বিতীয় দফায় এটি বেড়ে দাঁড়াবে ১১ টাকা ২০ পয়সায়।

গাড়িতে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহৃত সিএনজির দাম প্রতি ঘনমিটার ৩৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে প্রথম ধাপে ৩৮ এবং দ্বিতীয় ধাপে ৪০ টাকা নির্ধারণ করা হয়। এ বর্ধিত মূল্য ৪০ টাকার মধ্যে ফিড গ্যাসের মূল্য ধরা হয়েছে ৩২ টাকা এবং অপারেটর মার্জিন পূর্বনির্ধারিত আট টাকাই রাখা হয়েছে। ক্যাপটিভ পাওয়ারে প্রথম দফায় প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম ৮.৩৬ টাকা থেকে ৮.৯৮ টাকা এবং দ্বিতীয় দফায় ৯.৬২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। শিল্পে বর্তমানে প্রতি ঘনমিটার গ্যাস বাবদ ৬.৭৪ টাকা দিলেও মার্চ থেকে ৭.৪২ টাকা এবং জুন থেকে ৭.৭৬ টাকা পরিশোধ করতে হবে। চা বাগানে গ্যাসের দাম ৬.৪৫ টাকা থেকে দুই দফায় বেড়ে যথাক্রমে ৬.৯৩ টাকা এবং ৭.২৪ টাকা হবে। বাণিজ্যিক খাতে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম ১১.৩৬ টাকা থেকে বেড়ে ১৪.২০ টাকা এবং ১৭.৪ টাকা হয়েছে।

হাইকোর্ট গত ২৮ ফেব্রুয়ারি এক আদেশে সরকারি সিদ্ধান্তের ওপর ছয় মাসের স্থগিতাদেশ দিয়েছিলেন। একই সঙ্গে দুই দফায় গ্যাসের দাম বাড়িয়ে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের জারি করা গণবিজ্ঞপ্তি কেন অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুলও জারি করা হয়েছিল।

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password