বান্ধবীকে হয়রানি!

কানাডার এডমন্টনের এক মেয়েটির অভিযোগ, চার দিনে ৩০ জনের বেশি আগন্তুক তাঁর খোঁজে বাড়ি পর্যন্ত চলে এসেছে। ঘটনাটি পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

ওই নারীর অভিযোগ, খুব বিপদ ঘটে যেতে পারত। কারণ, তাঁর সঙ্গে আট বছরের বাচ্চাও থাকে। কিন্তু তাঁর নামে যে অ্যাকাউন্টগুলো খোলা হয়েছিল, সব কটিই ভুয়া। সাবেক প্রেমিক ‘প্রতিশোধ’ নিতে বা হয়রানি করতে ওই অ্যাকাউন্টগুলো খুলেছে। আগন্তুকদের অত্যাচারে শেষ পর্যন্ত বাড়ি ছাড়তে হয়েছে তাঁকে। সাবেক বন্ধুকে দায়ী করে অভিযোগ দাখিল করায় তিনি ই-মেইলে হুমকি পেয়েছিলেন বলেও জানান।

মেয়েদের নামে ফেসবুকসহ ডেটিং সাইটগুলোতে ভুয়া অ্যাকাউন্ট খুলে হয়রানির ঘটনা বাড়ছে। এ ধরনের ঘটনাগুলোকে বিশেষজ্ঞরা বলেন ‘সাইবার রিভেঞ্জ’। অনলাইনে এ ধরনের হয়রানি ঘটলে অনেকেই উদ্বেগে পড়ে যান এবং করণীয় ঠিক করতে পারেন না। নানা চেষ্টা করে অনলাইন সাইটগুলোয় প্রোফাইল বন্ধ করা যায় না। প্রতিষ্ঠানগুলোতে ই-মেইল করলেও সরাসরি সাড়া পাওয়া যায় না। তাই এ ধরনের ঘটনার শিকার হলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শরণাপন্ন হওয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

ইন্টারনেট মানুষের হাতে এখন নিপীড়নের এ প্রোগ্রাম তুলে দিয়েছে।

তবে বিশেষজ্ঞরা বলেন, ইন্টারনেটে এ ধরনের অপকর্ম করে নিজের পরিচয় লুকিয়ে রাখার সুযোগ নেই। এ ধরনের অপকর্ম করে অনেকেই ভাবেন, তাঁদের পরিচয় কেউ জানবে না, তাঁরা পার পেয়ে যাবেন। কিন্তু তাঁদের সে সুযোগ নেই। কারণ, ইন্টারনেটে লুকানোর কোনো জায়গা নেই। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সহজেই অপরাধীকে খুঁজে বের করতে সক্ষম।

তথ্যসূত্র: সিবিসি নিউজ

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password